September 30, 2022


অস্ট্রেলিয়ার কন্ডিশন এখান থেকে অনেকটাই আলাদা হবে এবং ম্যানেজমেন্ট সেটা মাথায় রেখেই তার ব্যবসা করবে।

অস্ট্রেলিয়ার কন্ডিশন এখান থেকে অনেকটাই আলাদা হবে এবং ম্যানেজমেন্ট সেটা মাথায় রেখেই তার ব্যবসা করবে।

20শে সেপ্টেম্বর, 2022-এ অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে তিন ম্যাচের হোম সিরিজ শুরু হলে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য তাদের পরিকল্পনা এবং প্রস্তুতিকে চূড়ান্ত রূপ দেওয়ার সময় ভারত তাদের সংমিশ্রণগুলি, বিশেষত মিডল-অর্ডারে সাজানোর চেষ্টা করবে।

যদিও বিশ্বকাপের আগে ছয়টি খেলায় কয়েকজন ফাস্ট বোলারকে বিশ্রাম দেওয়া হবে – অস্ট্রেলিয়া সিরিজের পরে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে তিনটি ম্যাচ – ভারতের কাছে সমন্বয় চূড়ান্ত করার জন্য তাদের হাতে একটি পূর্ণ শক্তি স্কোয়াড রয়েছে।

টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটটি অনেকটা নমনীয় হওয়ার বিষয়ে কিন্তু তিনি যেমন প্রথম টি-টোয়েন্টির আগে উল্লেখ করেছেন, ভারত অধিনায়ক রোহিত শর্মা অস্ট্রেলিয়ায় আইসিসি ইভেন্টের আগে তার খেলোয়াড়দের কাছ থেকে ‘সমস্ত উত্তর’ পেতে চান।

যদিও ভারত এশিয়া কাপে ভালো ব্যাট করেছে, কিন্তু টুর্নামেন্টের সময় তারা অনেক পরিবর্তনের আশ্রয় নিয়েছে। বোলিং বিভাগে তাদের গভীরতার অভাবও উন্মোচিত হয়েছিল তবে হার্শাল প্যাটেল এবং জাসপ্রিত বুমরাহ এখন আক্রমণকে শক্তিশালী করতে ফিরে এসেছেন।

রোহিত স্পষ্ট করেছেন যে কেএল রাহুল অস্ট্রেলিয়ায় তার উদ্বোধনী অংশীদার হবেন তবে বিরাট কোহলি তার পাশাপাশি ওপেন করার সম্ভাবনা রয়েছে। তারকা ব্যাটার তার শেষ টি-টোয়েন্টি ইনিংসে একটি স্মরণীয় সেঞ্চুরি করার সাথে, তাকে সর্বদা শীর্ষে ব্যাট করার লোভ থাকবে।

শীর্ষ-চারটি মোটামুটিভাবে সাজানো হয়েছে কিন্তু জুরি এখনও উইকেটরক্ষক ঋষভ পান্ত এবং দীনেশ কার্তিক প্লেয়িং ইলেভেনের ভূমিকায় রয়েছেন।

রবীন্দ্র জাদেজা আহত হওয়ায়, ভারত কি বাঁ-হাতি পান্তকে কার্তিকের উপরে রাখবে, যিনি স্কোয়াডে মনোনীত ফিনিশার? কার্তিক, যিনি এশিয়া কাপে খুব কমই ব্যাট করতে পেরেছিলেন, আগামী দুই সপ্তাহে যথেষ্ট খেলার সময় আশা করছেন।

দীপক হুডা সংযুক্ত আরব আমিরাতে সুপার 4 গেম খেলেছেন কিন্তু দলে তার ভূমিকা নিয়ে স্পষ্টতার অভাব রয়েছে।

এশিয়া কাপের সময় জাদেজার চোট দলের বোলিং ভারসাম্য বিপর্যস্ত করে। ছয়টি বোলিং বিকল্প থেকে, ভারত পাঁচ বোলার নিয়ে খেলতে বাধ্য হয়েছিল।

ভারত যদি হার্দিক পান্ড্য এবং জাদেজার মতো বদলি অক্ষর প্যাটেল উভয়কেই খেলতে পারে তবে দলের কাছে অতিরিক্ত বোলিং বিকল্প থাকবে।

বুমরাহ, ভুবনেশ্বর কুমার, হর্ষাল এবং হার্দিককে পেস আক্রমণ গঠনের সাথে অক্ষর এবং যুজবেন্দ্র চাহাল দুই স্পিনার হতে পারেন।

অস্ট্রেলিয়ার কন্ডিশন এখান থেকে অনেকটাই আলাদা হবে এবং ম্যানেজমেন্ট সেটা মাথায় রেখেই তার ব্যবসা করবে।

অন্যদিকে অস্ট্রেলিয়া, ডেভিড ওয়ার্নার (বিশ্রাম) সহ তাদের কয়েকজন প্রধান খেলোয়াড়কে ছাড়াই ভারতে এসেছে।

বিশ্বকাপের আগে ছোটখাটো ইনজুরি কাটিয়ে ওঠা মিচেল স্টার্ক, মার্কাস স্টয়নিস এবং মিচেল মার্শও অস্ট্রেলিয়ায় থেকে গেছেন।

ফোকাস থাকবে অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চের দিকে, যিনি সম্প্রতি ওয়ানডে থেকে অবসর নিয়েছেন দীর্ঘক্ষণ ক্ষীণ প্যাচের পরে। ঘরের মাঠে বিশ্বকাপের আগে রানের জন্য ব্যাগফুল লক্ষ্যে থাকবেন তিনি।

অন্য একজন খেলোয়াড় যিনি অনেক মনোযোগ আকর্ষণ করেছেন তিনি হলেন পাওয়ার-হিটার টিম ডেভিড যিনি সিঙ্গাপুরের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার পর অস্ট্রেলিয়ায় অভিষেক করতে চলেছেন।

ডেভিড বিশ্বজুড়ে টি-টোয়েন্টি লিগে তার পারফরম্যান্স দিয়ে নিজের জন্য একটি নাম তৈরি করেছেন এবং তিনি এটিকে সর্বোচ্চ স্তরে প্রতিলিপি করতে চাইবেন।

স্কোয়াড:

অস্ট্রেলিয়া: শন অ্যাবট, অ্যাশটন অ্যাগার, প্যাট কামিন্স, টিম ডেভিড, নাথান এলিস, অ্যারন ফিঞ্চ (সি), ক্যামেরন গ্রিন, জশ হ্যাজলউড, জশ ইঙ্গলিস, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, কেন রিচার্ডসন, ড্যানিয়েল সামস, স্টিভ স্মিথ, ম্যাথু ওয়েড, অ্যাডাম জাম্পা।

ভারত: রোহিত শর্মা (সি), কেএল রাহুল (ভিসি), বিরাট কোহলি, সূর্যকুমার যাদব, দীপক হুডা, ঋষভ পান্ত, দিনেশ কার্তিক, হার্দিক পান্ড্য, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, যুজবেন্দ্র চাহাল, অক্ষর প্যাটেল, ভুবনেশ্বর কুমার, হর্ষ প্যাটেল, দীপক চাহার, জাসপ্রিত বুমরাহ। উমেশ যাদব।

ম্যাচ শুরু হবে 7.30 IST.



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published.